গাড়িটি তল্লাশি চালিয়ে ৫৮৩.৫ কেজি শুকনো গাঁজা বাজেয়াপ্ত
গাড়িটি তল্লাশি চালিয়ে ৫৮৩.৫ কেজি শুকনো গাঁজা বাজেয়াপ্ত

পত্রদূত: তেলিয়ামুড়া প্রতিনিধিঃ জানা যায়,মুঙ্গিয়াকামী থানার এস.আই রঞ্জিত দাস এবং প্রফেসনাল ডি.এস.পি প্রসেনজিৎ রায় সহ মুঙ্গিয়াকামী থানার পুলিশ ভ্যাহিকাল চ্যাকিং-এ বসে। তখন আচমকাই তাদের  UP67 AT5814 নম্বরের দূরপাল্লার লরি দেখে মনে সন্দেহের দানা বাঁধে।  তখন গাড়িটিকে আটক করে গাড়ির চালক প্রমোদ যাদব এবং সহ-চালক বীরেন্দ্র রায় নামে বহিঃ রাজ্যের দুই জনের সঙ্গে কথা বার্তায় অসংলগ্নতা প্রত্যক্ষ করে খবর পাঠায় মহাকুমা পুলিশ আধিকারিক সোনাচরণ জমাতিয়ার নিকট। খবর পেয়ে তিনি ঘটনাস্থলে গিয়ে গাড়িটি তল্লাশি চালিয়ে ৫৮৩.৫ কেজি শুকনো গাঁজা বাজেয়াপ্ত করে। তার আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ত্রিশ লক্ষ্যাধিক টাকা। পরবর্তীতে মুঙ্গিয়াকামী থানার পুলিশ গাড়ি সহ গাড়িতে থাকা গাঁজা ও গাঁজা পাচারের সঙ্গে জড়িত দুই জনকে আটক করে মুঙ্গিয়াকামী থানায় নিয়ে আসে। মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সোনা চরণ জমাতিয়া জানিয়েছেন,, বাজেয়াপ্ত গাঁজা গুলো পাচারের উদ্দেশ্যে আগরতলার দিক থেকে বহিঃরাজ্য দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। তাছাড়া তিনি জানিয়েছেন,, আগামী দিনে এধরনের কর্মসূচি উনাদের জারি থাকবে। তবে উল্লেখ থাকে, ২০২১ সালের শ্রেষ্ঠ থানার শিরোপা অর্জনের পর মুঙ্গিয়াকামী থানার পুলিশের বিপুল পরিমাণে বাজেয়াপ্ত শুকনো গাঁজা তাদের প্রথম সফলতা।

আরো পড়ুন