আমবাসা কালীবাড়ি নিয়ে সাত সকালে ধুমধুমার কাণ্ড আমবাসায়।
আমবাসা কালীবাড়ি নিয়ে সাত সকালে ধুমধুমার কাণ্ড আমবাসায়।

আমবাসা কালীবাড়ি নিয়ে সাত সকালে ধুমধুমার কাণ্ড আমবাসায়। ধলাই জেলা আদালতের রায়ের পর  মঙ্গলবার সকালে  আদিত্য কুমার তিওয়ারির পরিবার মন্দিরের সেবায়েত হিসেবে দায়িত্ব  নিতে এলে  আমবাসার লোকজন প্রতিবাদ জানায়।  আমবাসা পুলিশ ওডিসিএম এর উপস্থিতিতে আদিত্য কুমার তেওয়ারির পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয় মন্দিরের দায়িত্ব, তারপরও  প্রতিবাদে ফেটে পড়ে আমবাসার বাজার এলাকার লোকজন। তারা জানায় আমবাসা কালীবাড়িনাথ মন্দির দীর্ঘ ১০০ বছরের পুরনো, এই মন্দির বাইরে থেকে লোক এসে কেউ কেউ দখল করতে পারবে না, এই মন্দিরে আমবাসা বাসীর আবেগ জড়ানো রয়েছে,  মন্দিরে আদিত্য কুমার তেওয়ারি বাড়ির লোকজন ঢুকতেই বিক্ষোভ দেখায় আমবাসা এলাকার লোকজন। কিছুক্ষণের  মধ্যেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। পরে আমবাসা ব্যবসায়ী সহ এলাকার লোকজন জাতীয় সড়ক অবরোধে বসে। দীর্ঘক্ষণ চলে এই অবরোধ। ঘটনার খবর পেয়ে ছুটে আসে পৌর পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গোপাল সূত্রধর, পৌর পরিষদের সদস্য দীপা দেব, তারাও অবরোধের শামিল হয়। কথা বলেন আমবাসা মহকুমা পুলিশ আধিকারিক ও ডিসিএম- র সাথে। আমবাসা বাসির অবরোধের ফলে আদিত্য তেওয়ারির পরিবারের লোকজন মন্দির ছেড়ে চলে যায়। পুলিশ প্রশাসন তাদেরকে সতর্কতার সাথে মন্দির থেকে নিয়ে যায়। এই ঘটনায় উত্তপ্ত গোটা আমবাসা, মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশ ও সিআরপিএফ বাহিনী, এখন দেখার বিষয় আমবাসা শিবশম্ভু কালীবাড়ি নাট-মন্দিরে আগামী দিন কি হয়।

আরো পড়ুন