বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ‘ক’ শ্রেণির মাদক উদ্ধার
বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ‘ক’ শ্রেণির মাদক উদ্ধার

পত্রদূত প্রতিনিধিঃ বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো ‘ক’ শ্রেণির মাদক ডাইমেথক্সি ব্রোমো অ্যাম্ফেটামিন (ডিওবি) উদ্ধার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর। এ ঘটনায় মঙ্গলবার তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই ডিওবি ‘ক’ শ্রেণিভুক্ত নিষিদ্ধ মাদক। ডিওবি অনেকটা এলএসডির মতো দেখতে হলেও ডিওবি আরও বেশি ক্ষতিকর। অতিরিক্ত সেবনে মৃত্যুও হতে পারে। ডার্ক ওয়েবসাইটে ক্রিপ্টোকারেন্সির মাধ্যমে পোল্যান্ড থেকে ২০০ ব্লট ডিওবি অর্ডার করেন খুলনার যুবক আসিফ আহমেদ শুভ। অর্ডারের পর ইন্টারন্যাশনাল কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে মাদকের চালানটি সরাসরি তার বাসায় পৌঁছায়। গত আগস্ট মাসে কি-ওয়ার্ড ‘এস ওয়াই এ এস এইচ’ শব্দটি পান গোয়েন্দারা। এরপর চলে অনুসন্ধান। তিন মাসের বেশি সময় অনুসন্ধানের পর এই মাদকের সন্ধান মিলেছে। গ্রেপ্তারের সময় শুভর বাসায় এলএসডি আর অর্ণবের বাসায় ডিওবি পাওয়া যায়। জিজ্ঞাসাবাদে শুভ জানান, তিনি দুই মাস আগে ২০০ ব্লট ডিওবি নিয়ে আসেন। যেগুলো তিনি নিজে সেবন করতেন ও অন্য সেবীদের কাছে বিক্রি করতেন। নতুন ক্রেতা তৈরি করতে কিছু ব্লট বিনামূল্যেও দিয়েছেন তিনি। ডিওবি সেবনের পর সেবনকারীকে যে কোনোভাবে প্রভাবিত করা যায়। ফলে সেবনকারী নির্দেশিত কাজ করতে উদ্যমী হয়ে ওঠেন। এর জন্য নির্দিষ্ট মাত্রায় সেবন করতে হয়। বেশি পরিমাণে সেবন করতে মৃত্যু ঘটতে পারে।

আরো পড়ুন