কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে, ছাড়া হবেনা কাউকে
কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে, ছাড়া হবেনা কাউকে

পত্রদূত প্রতিনিধিঃ কদমতলাঃ ভানু চন্দ :- চুড়াইবারি চেকপোস্টে মুখ্যমন্ত্রীর ঝটিকা সফর। দীর্ঘ প্রায় তিন ঘন্টা ধরে পরিবহন দপ্তরের অফিসে খতিয়ে দেখছেন বিভিন্ন কাজ। বহি:রাজ্য থেকে আসা পণ্যবাহী ওভারলোড বুঝাই কিংবা অধিক উচ্চতা সম্পন্ন গাড়িগুলো থেকে কর আদায় করা হচ্ছে কিনা তা সম্পূর্ণ খতিয়ে দেখছেন। রাজ্য সরকার প্রতিমাসে চুরাইবারি পরিবহন দপ্তর থেকে এবং বিক্রয় কর দপ্তর থেকে সেইভাবে কর পাচ্ছে না তাই মূখ্যমন্ত্রীর এই ঝটিকা সফর বলে জানা গেছে। এদিকে তিনি কমপ্লেক্সের পরিবহন দপ্তর ও বিক্রয় দপ্তর এবং পুলিশ প্রশাসনসহ টিআরটিসি'র কর্মীদের কাজে অসন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। তিনি বলেন রাতের অন্ধকারে কমপ্লেক্সে গাড়ি প্রবেশ না করে গেইট দিয়ে সরাসরি গাড়ি ত্রিপুরায় প্রবেশ করে সেই তথ্য উনার নিকট রয়েছে। যা বারবার বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছিল।তাই তিনি টিআরটিসি'র একাংশ গেটম্যানদের বিরুদ্ধে এবং পরিবহন দপ্তরের কর্মীদের বিরুদ্ধে কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার আশ্বাস দেন।তাছাড়া ওই এলাকাতে শাসকদলীয় একাংশ সক্রিয় দালাল চক্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি। চুরাইবারি সেলট্যাক্স কমপ্লেক্সে দালালচক্রের রমরমা নিয়ে একাধিকবার বিভিন্ন পত্রিকায় খবর প্রকাশিত হওয়ায় নড়েচড়ে বসেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাই এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী সম্পূর্ণ খতিয়ে দেখলেন।তাছাড়া কিছু গাড়ি রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকে যা দালালদের মাধ্যমে রাজ্যে প্রবেশ করবে সে ক্ষেত্রে রাজ্য সরকারের কোষাগারে কোন কর জমা হবে না সেই সব গাড়িগুলো উনি নিজে পায়ে হেঁটে দেখলেন এবং তিনি নিজে পরিবহন দপ্তরের অফিসে বসে প্রায় পনেরোটি গাড়ি ওজন করান তাতে অবশ্য ওভারলোড কিংবা অধিক উচ্চতা ধরা পড়ে। তাছাড়া কয়েকটি গাড়ি সম্পূর্ণ খুলে তল্লাশিও করান। বিক্রমের দপ্তর এর ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দেয়।বিনা তল্লাশিতে গাড়ি গুলো যেভাবে রাজ্যে প্রবেশ করে তাতে বহিঃরাজ্য থেকে নেশাজাতীয় কফ সিরাপ ও বিভিন্ন সামগ্রী নিয়ে রাজ্যে প্রবেশ করে। তাই যদি বিক্রয় দপ্তরের কর্মীরা প্রতিটি গাড়ি তল্লাশি করে রাজ্যে প্রবেশ করান তাহলে সেই সমস্যা থেকে রেহাই পাবে রাজ্য। তাছাড়া সমস্ত কমপ্লেক্স এলাকাতে বিদ্যুৎ চলে গেলে বিকল্প ব্যবস্থা নেই আর এই রাতের আধারে দালালচক্রের রমরমা বেড়ে যায়। তাই সেখানে সিসি ক্যামেরা সহ জেনারেটর দেওয়ার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। তাছাড়াও চুরাইবাড়িতে জাতীয় সড়কের দুই পাশে অবৈধ প্রায় শতাধিক ক্রেসার মেশিন ব্যাঙের ছাতার মত গড়ে উঠেছে। সেই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী জেলাশাসককে নির্দেশ দিয়েছেন সম্পূর্ণ কাগজপত্র খতিয়ে দেখার জন্য।যদি সেগুলি অবৈধ প্রমাণিত হয় তাহলে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরো পড়ুন